24 C
Kolkata

‘সুরক্ষার দায় নিতে হবে যাত্রীকেই’ ,জানালো রেল

নিজস্ব সংবাদদাতা : করোনাভাইরাস পরিস্থিতির মাঝে বিগত প্রায় ৭ মাস বন্ধ ছিল ট্রেন পরিষেবা। আগামী বুধবার থেকে সেই পরিষেবা চালু হওয়ায় হাঁফ ছেড়ে বাঁচবে সাধারণ মানুষ। রাজ্য সরকারের অনুরোধ মেনে নির্ধারিত ট্রেনের থেকে আরও ৮১ টি ট্রেন বেশি চালাবে দক্ষিণ পূর্ব রেল। প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়ে এমনটাই জানানো হয়েছে কর্তৃপক্ষের তরফে।দক্ষিণ পূর্ব রেল জানিয়েছে,
৮১ টি ট্রেনের মধ্যে ৪০ টি আপ এবং ৪১ টি ডাউন ট্রেন চলবে। ৪০ টি আপ ট্রেনের মধ্যে ১৩ টি চলবে হাওড়া-মেদিনীপুর শাখায়, ৮ টি ট্রেন চলবে হাওড়া-পাঁশকুড়া শাখায়, একটি চলবে সাঁতরাগাছি-পাঁশকুড়া শাখায়। একই সঙ্গে, ৪ টি ট্রেন চলবে হাওড়া-আমতা শাখায়, ২ টি হাওড়া হলদিয়া শাখায়, ৪ টি হাওড়া-খড়গপুর, ২ টি হাওড়া-মেচেদা, ১ টি শালিমার-মেছেদা, ২ টি সাঁতরাগাছি-মেচেদা, ১ টি পাঁশকুড়া-দীঘা, ১ টি মেছেদা-দীঘা এবং ১ টি শালিমার-সাঁতরাগাছি শাখায় চলবে।অন্যদিকে, ৪১ টি ডাউন ট্রেনের মধ্যে ১২ ট্রেন চলবে মেদিনীপুর-হাওড়া শাখায়, ৮ টি চলবে পাঁশকুড়া-হাওড়া শাখায়, ৩ টি চলবে মেচেদা-হাওড়া শাখায়। একই সঙ্গে, ১ টি হাওড়া-বাগনান, ৪ টি আমতা-হাওড়া, ৫ টি খড়গপুর-হাওড়া, ২ টি হলদিয়া-হাওড়া, ১ টি দীঘা-পাঁশকুড়া, ১ টি পাঁশকুড়া-সাঁতরাগাছি শাখায় চলবে।
প্রতিদিনের টিকিট এবং সিজন টিকিট বিভিন্ন স্টেশনের কাউন্টার থেকেই মিলবে। সিজন টিকিটের ভ্যালিডিটি বাড়িয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে কর্তৃপক্ষের তরফে।রেল যাত্রী সচেতনতায় একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে। হাওড়ার ডিআরএম ইশাক খান বলেন, ‘সব স্টেশনের নানা জায়গায় কোভিড বিধি মেনে যাত্রার কৌশলের বিষয়ে পোস্টার লাগানোর কাজ চলছে। যেখানে ভিডিও এড্রেস সিস্টেম রয়েছে সেখানে তা দেখানো হবে। যে স্টেশনে অডিও এড্রেস সিস্টেম রয়েছে সেখানে খালি ঘোষণা হবে সচেতনতার।’
এবার আসা যাক শিয়ালদার দিকে। শিয়ালদা মেন শাখায় থাকা কৃষ্ণনগর জংশন থেকে শিয়ালদা যাওয়ার ট্রেন মিলবে সারাদিনে ৯টি। শান্তিপুর থেকে শিয়ালদা যাওয়ার ট্রেন মিলবে ৭টি। গেদে থেকে শিয়ালদা লোকাল পাওয়া যাবে ৮টি ও রানাঘাট যাওয়ার জন্য মিলবে অতিরিক্ত ৪টি লোকাল। রানাঘাট থেকে শিয়ালদা যাওয়ার জন্য লোকাল ট্রেন ছাড়বে ৬টি। কল্যাণী সীমান্ত থেকে শিয়ালদা যাওয়ার জন্য মিলবে সারাদিনে ৫টি ট্রেন। নৈহাটি থেকে শিয়ালদা যাওয়ার জন্য মিলবে ১১টি ট্রেন। ব্যারাকপুর থেকে মিলবে ৮টি ট্রেন। কৃষ্ণনগর থেকে শান্তিপুর যাওয়ার জন্য সারাদিনে ২টি, রানাঘাট থেকে বনগাঁ যাওয়ার জন্য ৬টি, রানাঘাট থেকে শান্তিপুর যাওয়ার জন্য ২টি ও রানাঘাট থেকে লালগোলা যাওয়ার জন্য মিলবে ৪টি ট্রেন। নৈহাটি ও ব্যান্ডেল জংশনের মধ্যে মিলবে সারাদিনে ৯টি ট্রেন। লালগোলা থেকে শিয়ালদা আসার জন্য আপাতত ১টি মাত্র ট্রেনই দেওয়া হয়েছে।চলে আসছি শিয়ালদা দক্ষিন শাখায়। বজবজ থেকে শিয়ালদা আসার জন্য মিলবে সারাদিনে ১১টি ট্রেন। ডায়মন্ডহারবার থেকে শিয়ালদা আসার জন্য মিলবে ১২টি ট্রেন। বারুইপুর থেকে শিয়ালদা আসার জন্য মিলবে ১১টি ট্রেন। ক্যানিং থেকে মিলবে সারাদিনে ১৩টি লোকাল যা শিয়ালদা যাবে। সোনারপুর থেকে শিয়ালদা যাওয়ার জন্য মিলবে ৯টি ট্রেন। শিয়ালদার ডিআরএম এসপি সিং-এর কথায়, ‘টিকিট কেটে সবাই ট্রেনে চড়বেন। এক ট্রেনে ৬০০ যাত্রী ঘোষণা করা হয়েছে। তা কি মানবেন যাত্রীরা।’ একটি ট্রেনে ১৪০০ যাত্রী চড়লেও ফাঁক থাকবে। তার বেশি হলে বিপদ সুনিশ্চিত। রেল এই সংখ্যা প্রকাশ না করলেও আশঙ্কা করছে। সেইমতো যাত্রীদের সচেতন করেই নির্ধারিত দূরত্ব তৈরি করতে চাইছে। সিং বলেন, ‘নিজের সুরক্ষা সম্পর্কে নিজেকেই সচেতন থাকতে হবে। কোন ট্রেনে কখন কীভাবে যাত্রা করে নিজেকে সুরক্ষিত রাখবেন সে ভাবনা ও দায়িত্ব যাত্রীর নিজের।’
রেল জানিয়েছে, ট্রেন বন্ধ থাকার সময় যে যাত্রীদের টিকিটের মেয়াদ শেষ হয়ে গিয়েছে, এবার নিউ নরমাল তাঁদের সেই মেয়াদ বাড়িয়ে দেওয়া হবে। অনেক যাত্রীরাই আছেন যারা এক মাস, তিন মাস বা ছমাসের মেয়াদেরও টিকিট একবারে কেটে রাখেন। এবার তাদের সেই টিকিটের মেয়াদ বাড়িয়ে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে ভারতীয় রেল।আর এক্ষেত্রে এই মেয়াদ বাড়িয়ে নেবার জন্য যাত্রীদেরকে যে কাউন্টার থেকে টিকিট কাটা হয়েছিল, সেই কাউন্টার থেকেই এই বদল করাতে হবে। আর এক্ষেত্রে যাত্রীদের সুবিধার্থে যাতে টিকিটের লাইনে ভিড় না হয়, সেজন্য আগামী সোমবার সকাল ৮টা থেকেই রেলের টিকিট কাউন্টারগুলিতে এই সিজন টিকিটের মেয়াদ বৃদ্ধির কাজ করা হবে বলে রেলের তরফ থেকে জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:  Gujrat: ভোটের মুখেই আধা সামরিক বাহিনীর ক্যাম্পে এলোপাথাড়ি গুলি, নিহত ২ জওয়ান

Featured article

%d bloggers like this: