35 C
Kolkata

SUVENDU ADHIKARI BJP: আর্থিক প্রলোভন দেখানোর অভিযোগ শুভেন্দুর বিরুদ্ধে

নিজস্ব প্রতিবেদন: প্রতিবাদে নেমে বিপাকে বিজেপি। আদিবাসী উচ্ছেদ করতে চাইছে মমতা সরকার। দেউচা পাচামি প্রকল্প নিয়ে প্রতিবাদে নেমেছিলেন শুভেন্দু, সুকান্ত-রা। দাবি, ”আগে সম্পূর্ণ পূর্বাসন, পরে কয়লা খনন”। কিন্তু বিজেপির বিরুদ্ধেই তোলা হল ‘গো ব্যাক’ স্লোগান। এমনকী ওই এলাকার বাসিন্দারা রুখে দাঁড়িয়ে জানিয়ে দেয়, তাদের ভালোর কথা ভাবতে হবে না বিজেপিকে। খনি নিয়ে কোনও রাজনীতি বরদাস্ত করবে না বীরভূম জমি-জীবন-জীবিকা ও প্রকৃতি বাঁচাও মহাসভা। বিজেপি যখন রাইপুর থেকে দেউচায় পদযাত্রা করছে, তখনই আদিবাসীদের বড় অংশ একেবারে পথে নেমে বিরোধিতায় গেরুয়া শিবির। কালো পতাকা দেখিয়ে পালটা স্লোগান দিয়েছে। সুকান্ত মজুমদারের দাবি, ”এলাকার আদিবাসীরা আজ আমাদের মিছিলে আছেন। বিক্ষোভকারীদের পিছনে অন্য কারও মদত আছে। তবে আদিবাসীরা চাইলে আমরা দলীয় পতাকা ছাড়া আন্দোলনে শামিল হতে রাজি আছি।” কিন্তু এতেই তো শেষ নয়। বিরোধি নেতা শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধেও ওঠে গুরুতর অভিযোগ। দুই নেতার কথোপকথন ইতিমধ্যেই ছড়িয়ে পড়েছে। তাতে শোনা যাচ্ছে, কুড়ি লক্ষ টাকার ভাগ-বাটোয়ারার কথা। স্থানীয়দের মধ্যে সেই অর্থ দিতে রাজি শুভেন্দু অধিকারী।

শাসকদলের পাল্টা দাবি, এলাকার মানুষ চান প্রকল্প। খনি ঘিরে উন্নয়নের স্বপ্ন দেখছে সকলে। স্থানীয়দের কাছে তাড়া খেয়ে কালো পতাকা দেখেছে বিজেপি। এবার টাকার থলি নিয়ে মাঠে নেমেছে। সেখানকার মানুষকে টাকা দিয়ে কিনতে চাইছে। সরকারের বিরুদ্ধে মাঠে নামানোর এই প্রচেষ্টা সফল হবে না। কারণ সুকান্ত ও শুভেন্দুবাবু এখানে এসে বুঝে গিয়েছেন, মানুষ পাশে নেই। রাজ্যের বস্ত্রমন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিনহা জানান, ”শুধুমাত্র জেলার পরিবেশ নষ্ট করতে আসছে বিজেপি নেতারা। বিজেপির ওই মিছিল বিক্ষোভের ধাক্কায় দেউচা পাচামির ধারে কাছে পৌঁছতে পারেনি। মথুরা পাহাড়ি এলাকাতেও মহাসভার বিক্ষোভের মুখে পড়ে বিজেপি। নেতা গনেষ কিসকু বলেন, ”বিজেপি শাসিত রাজ্যে আদিবাসীদের উচ্ছেদ করা হচ্ছে। আর তারা এখানে আসছেন আমাদের সমর্থন করতে। আমাদের মহাসভায় রাজনীতি ঢুকতে দেব না। আমাদের ভালো আমরাই বুঝব।”

আরও পড়ুন:  OBC reservation for MP election: মধ্যপ্রদেশে সংরক্ষিত ওবিসি

Featured article