18 C
Kolkata

TMC: তৃণমূলে হচ্ছেটা কি?

শ্রাবণী পাল: ঠাণ্ডার লড়াই সঙ্গে গরম উত্তাপ। সকাল হলেই চা হাতে শরীর গরম করা খবর তৈরি হচ্ছে কাগজের প্রথম পাতায়। একের পর এক লেগেই রয়েছে। আর এই তোপ পাল্টা তোপ মোটেই একঘেয়ে নয়। হেভিওয়েটদের মধ্যেই ‘সাইলেন্টে’ ঘাত-প্রতিঘাত। একদিকে চলছে দিলীপ অনুগামী বনাম শুভেন্দু অনুগামী। আর একদিকে এখন ‘ব্যক্তিগত মতামত’এর লড়াই। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্যকে সরাসরি ‘ইগনোর’ করার কথা জানিয়েছেন শ্রীরামপুরের তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও তাঁর বক্তব্যকে সেভাবে গুরুত্ব দেননি ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ। শুধু একটু ‘শিরদাঁড়া শক্ত’ করার প্রমাণ দিতে বলেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। আবার মদনও এখন মুখ খুলছেন। সব মিলিয়ে হচ্ছেটা কী? শুধু মমতাকেই মানবেন তাঁরা এ কথা বিক্ষুব্ধদের বাক্যে স্পষ্ট। একটা বাক্য আগাগোড়াই প্রচলিত ছিল শাসক বিরোধী শিবিরে- ‘তৃণমূলে নাকি একটাই পোস্ট আর বাকি সব ল্যাম্প পোস্ট।’

আরও পড়ুন:  Bjp: ২০০ জনের বিজেপিতে যোগদান

একটি সংবাদমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রাজনীতিকদের জন্যেও বয়সের সীমা বেঁধে দেওয়ার কথা জানিয়েছেন অভিষেক। তাঁর দাবি, ‘কেন্দ্রে তো বিজেপি রয়েছে। তারা বেঁধে দিক এই নিয়ম। আমার মানতে আপত্তি নেই।’ কিছুদিন আগেই এক কবির লেখা সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে শ্রীরামপুরের সাংসদ আক্রমণ শানান অভিষেককে। তিনি লিখেছিলেন, ‘তুমিও মানুষ আমিও মানুষ/ তফাত্ শুধু শিরদাঁড়ায়।’ এই প্রসঙ্গেই অভিষেক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ”আপনি দলের কর্মীদের হয়ে যেদিন কাজ করবেন, সেদিন আপনার শক্ত শিরদাঁড়া প্রমাণিত হবে।” যদিও অভিষেকের এই মন্তব্যে কোনও রূপ প্রতিক্রিয়াই করতে চাননি কল্যাণ। তিনি বলেছেন, ”ওঁর বক্তব্যকে আমি ইগনোর করি।” তিনি আরও বলেছেন, ”ওটা ওঁর ব্যক্তিগত সাক্ষাৎকার। মতামতগুলোও ব্যক্তিগত। কোনও দলীয় প্রেসমিট নয়।”
তবে কল্যাণেই সমাপ্ত নয়। বিক্ষুব্ধ মদনও। প্রার্থীর তালিকার লড়াই নিয়ে মদন নাম না করে আক্রমণ করেছন দমদমের তৃণমূল সাংসদকে। বিদ্রূপের ভাষাতেই কামারহাটির বিধায়ক বলেছেন, ”দু’তিন জন পঞ্চায়েত মোড়লি করছে। তাঁরা চায় না দল ভালো ফল করুক। লুঙ্গি-ধুতি পরে বোটি কাবাব খেলে কেউ মানবে না।” দ্বন্দ্ব কী তবে যুব নেতাতে? অভিষেক সাক্ষাৎকারে মন্তব্য করেছেন, ”আমি যুব নেতা থাকাকালীনও সমস্যা ছিল। এখন সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক হওয়ার পরও সমস্যা। আমিও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই মানি। আমি তুচ্ছ ক্ষুদ্র একজন তৃণমূল কর্মী।” শাসকদলের এহেন মতানৈক্যকে বেশ মজার ছলেই দিচ্ছে বিরোধী শিবিরগুলো। কারণ কিছুদিন আগেই তৃণমূলের এক নেতৃত্ব মন্তব্য করেছিলেন, ”আমাদের দল বিজেপির মতো দল নয়, এখানে ঐক্য আছে।”

আরও পড়ুন:  SSC Recruitment Scam: একি কান্ড! ইস্তফা দিয়েই উধাও 'ভূগোল শিক্ষিকা', কিন্তু কেন?

Featured article

%d bloggers like this: