33 C
Kolkata

Crocodile Caught:- নদীতে জাল ফেলতেই চক্ষু চড়কগাছ মৎস্যজীবীদের , কিন্তু কেন ?

নিজস্ব প্রতিবেদন :- মাছ ধরার উদ্দেশ্য নেই নদীতে জাল ফেলেছিলেন মৎস্যজীবীরা । হঠাৎই কিছু একটা ভারী জিনিস অনুভব করেন মৎস্যজীবী । জাল টেনে তুলতেই চক্ষু চড়কগাছ মৎস্যজীবীর । মাছের বদলে জালে ধরা পড়েছে কুমীর । ঘটনা নন্দীগ্রামের ।

মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করেন নন্দীগ্রামের সোনাচূড়ার বাসিন্দা বিশ্বদীপ ধীবর। প্রায় প্রতিদিনই নদীতে জাল ফেলেন তিনি। মাছও পান। আর তা বিক্রি করে যে টাকা উপার্জন হয়, তা দিয়ে সংসার চালান। বৃহস্পতিবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। এদিনও হুগলি নদীতে জাল ফেলেন তিনি। তবে জাল নদী থেকে পাড়ে টেনে তোলার পরই মৎস্যজীবীর চক্ষু চড়কগাছ হয় ঐ মৎস্যজীবী বিশ্বদীপ ধীবরের ।

ঘটনাকে কেন্দ্র করে শোরগোল পড়ে গিয়েছে গোটা নন্দীগ্রামে । জলজ ভয়ংকর প্রাণীকে দেখতে ভিড় জমান বহু উৎসুক। বনদপ্তরে খবর দেন মৎস্যজীবী। কুমিরটিকে উদ্ধার করেছেন বনকর্মীরা। শারীরিক পরীক্ষা নিরীক্ষাও করা হয় তার।

আরও পড়ুন:  Dengue in Siliguri: ডেঙ্গুর আতঙ্কে আতঙ্কিত স্থানীয়রা
আরও পড়ুন:  Durga Puja 2022: মণ্ডপের উদ্দেশে যাত্রা শুরু

ঘটনা প্রসঙ্গে ওই মৎস্যজীবী বিশ্বদীপ জানান ,” কুমিরটিকে দেখে প্রথমে কিছুটা আতঙ্কিতই হয়ে পড়েন তিনি। কারণ, হুগলি নদীতে সাধারণত কুমির থাকে না। তাই তা জালবন্দি হওয়ায় চমকে যান। ওই কুমিরটিকে দেখতে অন্যান্য মৎস্যজীবী ভিড় জমান। বিশ্বজিৎ ধীবর তড়িঘড়ি বাড়ির সামনে নিয়ে যায় কুমিরটিকে। খবর দেন বনদপ্তরে। খবর পাওয়ামাত্রই বনকর্মীরা মৎস্যজীবীর বাড়িতে পৌঁছন। কুমিরটিকে উদ্ধার করা হয় ।”

বনকর্মীদের সূত্রে জানা যাচ্ছে , ওই কুমিরটিকে শারীরিক পরীক্ষা নিরীক্ষার পর নিরাপদ স্থানে ছেড়ে দেওয়া হবে। বনকর্মীদের মতে, হুগলি নদীতে কুমির থাকে না। কীভাবে তা মৎস্যজীবীর জালে ধরা পড়ল, তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে।

Featured article

%d bloggers like this: